Skip to main content
ইপসা জাতিসংঘের ”ইকোনোমিক এন্ড সোস্যাল কাউন্সিল” এর কন্সালটেটিভ স্টাটাস প্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী সংগঠন

গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির কর্মস্থলে প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে এইচআইভি প্রতিরোধ ও ঝুঁকি কমানো

Group photo
Certificate giving ceremony
Certificate giving ceremony on ToT on Life Skill Education training held
Yasmin Akther

প্রকল্পের নাম:

Providing Primary Prevention of HIV and Risk Reduction through Workplace Interventions in Garments Factories/Industries (GFATM#912) of RCC.

দাতা সংস্থা : গ্লোবাল ফান্ড (ব্যবস্থাপনা এজেন্সী : সেভ দ্য চিলড্রেন ইউএসএ )

প্রকল্পের লক্ষ্য :

গামের্ন্টস কর্মীদের মধ্যে প্রাথমিক প্রতিরোধ ব্যবস্থার মাধ্যমে এইচআইভি/এইডস এর প্রসার ও প্রভাব কমানো।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির কর্মস্থলে প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে কর্মরত বিপদাপন্ন যুব র্কমীদের জীবন দক্ষতা শিক্ষা প্রদান করে  ক্ষমতায়ন করা।

প্রকল্পের সময়কাল : জানুয়ারী, ২০০৮ থেকে এপ্রিল, ২০১৪

প্রকল্পের লক্ষিত জনগোষ্ঠি :  বৃহত্তর চট্টগ্রামের অন্যান্য গার্মেন্টস কর্মীরা ।

প্রেক্ষাপট :

এইচআইভি/এইডস, যক্ষা এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার সেভ দ্য চিলড্রেন ইউএসএ এর বস্থাপনায় জিএফএটিএম এর অনুদান  গ্রহণ করে। এইচআইভি/এইডস বিষয়ক রাউন্ড – ৬ এর এই প্রকল্পটি নাম হচ্ছে  ‘‘বাংলাদেশে ঝুঁকিপূর্ণ যুব সমাজের মধ্যে এইচআইভি প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণ’’। বাংলাদেশে রাউন্ড-৬’এ মোট ১৩ প্যাকেজ সংশি­ষ্ট ইস্যুতে কার্যক্রম পরিচালিত করছে । ইপসা কনসোর্টিয়াম জিএফ-৯১২ প্যাকেজের আওতায় ‘‘গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির কর্মস্থলে প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে এইচআইভি  প্রতিরোধ ও ঝুঁকি কমানো’’ প্রকল্পটি নিয়ে কার্যক্রম বাসত্মবায়ন করছে। প্রকল্পটির কর্মএলাকা হচ্ছে চট্টগ্রাম বিভাগ।

রাউন্ড-৬ এর ‘‘ বাংলাদেশে ঝুঁকিপূর্ণ যুব সমাজের মধ্যে এইচআইভি প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণ’’ এই কার্যক্রমটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয়ের সহযোগিতায় এবং সেভ দ্য চিলড্রেন ইউএসএ এর ব্যবস্থাপনায় ও জিএফএটিএম এর অনুদানে বাংলাদেশে পরিচালিত হচ্ছে।

প্রধান কার্যক্রমসমুহ :

  • গার্মেন্টস কর্মীদের চাহিদা নিরূপন
  • বিজিএমইএ এবং গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানের মালিকদের সাথে জাতীয় পর্যায়ে কর্মশালা
  • জীবন দক্ষতা শিক্ষার উপর কর্মস্থলের জন্য প্রণীত নীতিমালা অনুমোদন/স্বীকৃতি বিষয়ক সংশি­ষ্টদের সাথে সভা, যে নীতিমালা ফ্যাক্টরীর আর্থিক সহায়তার বাস্তবায়িত হবে এবং যেখানে সহায়তামুলক তত্বাবধান থাকবে।
  • এইচআইভি প্রতিরোধে পিয়ার এডুকেরটরদের জন্য জীবন দক্ষতা শিক্ষা বিষয়ক ফ্লিপ চার্ট তৈরি যেখানে কনডম ব্যবহার বিষয়ক প্রদর্শন থাকবে।
  • বাড়ীতে নিয়ে যাওয়ার মত (এক পৃষ্ঠার) যোগাযোগ উপকরণ তৈরি।
  • এইচআইভি প্রতিরোধে মাষ্টার ট্রেইনারদের জন্য জীবন দক্ষতা শিক্ষা শীর্ষক প্রশিক্ষণ
  • এইচআইভি প্রতিরোধে পিয়ার এডুকেটদের জন্য জীবন দক্ষতা শিক্ষা শীর্ষক প্রশিক্ষণ
  • এইচআইভি প্রতিরোধে কর্মস্থলে সেশন পরিচালনা (পাঁচ দিন)
  • যে সকল স্থানে/কমিউনিটিতে গার্মেন্টস কর্মীরা বসবাস করে সেই সকল স্থানে এইচআইভি প্রতিরোধে ভিডিও চিত্র প্রদর্শন এবং সংশি­ষ্ট বিষয়ে আলোচনা।

অর্জন:

  • বিজিএমইএ এবং গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানের মালিকদের সাথে জাতীয় পর্যায়ে ২ টি কর্মশালা, এতে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ১০৩ জন।
  • ৩৯৮২০ জন গার্মেন্টস কর্মীকে ১৯৮৫ টা ব্যাচে জীবন দক্ষতা শিক্ষা প্রশিক্ষন প্রদান।
  • ১০০০ wU take-home প্রচার পত্র তৈরি করা হয়।
  • ৩০ জন মাস্টার ট্রেইনার কে ট্রেনিং প্রদান করা হয়।
  • ১৬০ জন পিয়ার এডুকেটর কে ট্রেনিং প্রদান করা হয়।
  • বিভিন্ন গামেন্টস এ ৮৮১০ টি সেশন পরিচালনা করা হয়।
  • ৪৪০৩ টি ভিডিও শো তৈরি করা হয়।
  • বিশ্ব এইডস দিবস পালন করা হয় । এতে উপস্থিত ছিলেন মাস্টার ট্রেইনার, পিয়ার এডুকেটর, বিজিএমইএ এবং গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানের মালিক, গার্মেন্টস কর্মী এবং সরকারি কর্মকর্তা।

ইপসা কনসোর্টিয়াম পার্টনার সংস্থাঃ

  • ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা)
  • এইচআইভি/এইডস এন্ড এসটিডি এলায়েন্স বাংলাদেশ (HASAB)
  • সমাজ কল্যান উন্নয়ন সংস্থা (SKUS)

ইপসা কনসোর্টিমের নেতৃত্বদানকারী সংস্থা হিসাবে দায়িত্ব পালন করছে।

প্রকল্পের কৌশলগত পার্টনার সংস্থাসমুহ–  ২০ টি